সর্বশেষঃ

গলায় মাছের কাঁটা আটকে গেলে যা করবেন

মাছ প্রায় সকলেরই পছন্দের খাবার। মাছে ভাতে বাঙালি বলে কথা। তবে পছন্দের এই খাবারটি কিন্তু আবার ভোগান্তির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

কীভাবে? খেতে গিয়ে গলায় মাছের কাঁটা আটকে গেলে। খাওয়ার সময় অসাবধানতাবশত মাছের কাঁটা গলায় আটকে যাওয়াটা অস্বাভাবিক কিছু নয়। কিন্তু এ অভিজ্ঞতা বেশ অস্বস্তিকর, এমনকি বিপজ্জনকও হতে পারে। সুতরাং মাছের কাঁটা গলায় বিঁধলে খুব সহজেই তা নামানোর কিছু ঘরোয়া উপায় জেনে রাখুন।
* অলিভ অয়েল: অলিভ অয়েল হলো প্রাকৃতিক লুব্রিকেন্ট। গলায় মাছের কাঁটা আটকে গেলে ১-২ চা-চামচ অলিভ অয়েল গিলে খান। এতে কাঁটা নরম হয়ে নেমে যাবে কিংবা কাশির মাধ্যমে বেরিয়ে আসবে।

* কাশি: মাছের কাঁটা সাধারণত গলার পেছনে টনসিলের চারপাশে আটকে যায়। এক্ষেত্রে একটু জোরে কাশি দিয়ে এ সমস্যা থেকে মুক্ত হতে পারেন।

* সাদা ভাত: গলায় আটকানো মাছের কাঁটা সাদা ভাত দিয়ে খুব সহজে নামানো যায়। এক মুঠো সাদা ভাত গিলে একটু পানি খান। এতে সহজে কাঁটা নেমে যাবে।
* কলা: গলায় মাছের কাঁটা বিঁধলে সঙ্গে সঙ্গে একটি কলা খান। এতে খুব দ্রুত কাঁটা নেমে যাবে।

* হালকা গরম পানি: হালকা গরম পানির সঙ্গে সামান্য পরিমাণ লবন মিশিয়ে খেতে পারেন। এতে মাছের কাঁটা নরম হয়ে নেমে যাবে।

* ভিনেগার: পানির সঙ্গে অল্প পরিমাণ ভিনেগার মিশিয়ে খেলে মাছের কাঁটা খুব সহজে নেমে যায়। এটি লেবুর মতোই কাজ করে।

* সফট ড্রিংকস: গলায় আটকানো কাঁটা নামানোর আরেকটি কার্যকরী পদ্ধতি সফট ড্রিংকস খাওয়া। গলায় কাঁটা আটকানোর সঙ্গে সঙ্গে এক গ্লাস সফট ড্রিংকস খেয়ে নিন। কাঁটা নরম হয়ে নেমে যাবে।

* পাউরুটি ও মাখন: মাখন মাখানো পাউরুটিতে বড় কামড় দিয়ে গিলে ফেলুন। গলায় আটকে থাকা মাছের কাঁটা নেমে যাবে।

কখন ডাক্তারের কাছে যাবেন

ঘরোয়া পদ্ধতিতে মাছের কাঁটা গলা থেকে না নামলে আপনার ডাক্তারের সঙ্গে দেখা করুন।
মাছের কাঁটা যদি আপনার খাদ্যনালীতে বা আপনার পরিপাকতন্ত্রের অন্য কোথাও আটকে থাকে, তাহলে এটি সত্যিকারের বিপদ ডেকে আনতে পারে। এতে আপনার খাদ্যনালী ছিঁড়ে যেতে পারে, ফোড়া হতে পারে এবং বিরলক্ষেত্রে জীবন-হুমকির জটিলতা সৃষ্টি করতে পারে।

গলা ফুলে যাওয়া, বুক ব্যথা, শ্বাসকষ্ট, মুখে দিয়ে বেশি লালা ঝরা, খাবার খাওয়া বা পানীয় পানে সমস্যা বোধ করলে দ্রুত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হোন।

ইলেকট্রিক্যাল পণ্যের বাজারে শীর্ষে যেতে ওয়ালটনের নতুন মাইলফলক

টেক টাইমস বিডি এর ফেসবুক পেজের লিংক

তথ্যসূত্র: হেলথ লাইন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!