সর্বশেষঃ
লাইফ-স্টাইল

চুলে মধু ব্যবহারের আটটি কারণ

চুলের যত্নে ভুলের মূল্য অনেক। চুল রুক্ষ হয়ে যাওয়া, চুলে ভেঙে যাওয়া, খুশকি সমস্যা, চুলের ঘনত্ব কমে যাওয়া, মাথার স্ক্যাল্পে সমস্যা সহ নানাভাবে ভুলের মূল্য দিতে হতে পারে।

এছাড়াও সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে, চুল পড়ে টাক হয়ে যাওয়া লাগতে পারে। তাই চুলের যত্ন নিতে ভুল করা যাবে না। শরীরের ত্বকের মতো চুলেও প্রয়োজন বিশেষ যত্ন। আর এক্ষেত্রে চুলের যত্নে ব্যবহার করতে পারেন মধু। জেনে নিন, চুলে মধু ব্যবহারের ৮ কারণ।

চুলে আদ্রতা বজায় রাখে: মধুতে রয়েছে প্রাকৃতিক হুমেকটেন্ট, অর্থাৎ এটি বাতাস থেকে আদ্রতা নিয়ে আপনার চুলে এবং ত্বকে তা ধরে রাখে। মধুর হুমেকটেন্ট উপাদান চুল ভেঙে যাওয়া রোধে সাহায্য করে, রুক্ষতা দূরে করে চুল সুস্থ ও মজবুত করে।

চুলের গ্রন্থিকোষ শক্তিশালী করে: চুলের গ্রন্থিকোষ শক্তিশালী করতেও মধু কাজ করে। ফলে মাথার চুল ওঠে যাওয়া রোধ হওয়ার পাশাপাশি দীর্ঘ চুলের অধিকারী হওয়া যায়।

চুল উজ্জ্বল করে: মধুতে গ্লুকোজ অক্সিডেস এনজাইম রয়েছে। একটু বেশি সময় ধরে চুলে মধু দিয়ে রাখলে এই এনজাইম ধীরে ধীরে হাইড্রোজেন পারক্সাইড নিঃসরণ করে, যা চুলে প্রাকৃতিক উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে। ৩ টেবিল চামচ মধুর সঙ্গে ২ টেবিল চামচ পানি মিশিয়ে ভেজা চুলে লাগিয়ে ১ ঘণ্টা রেখে ধুয়ে ফেলুন।

অ্যান্টি অক্সিডেন্টে ভরপুর: মধুতে শক্তিশালী অ্যান্টি অক্সিডেন্টের খোঁজ পাওয়া গেছে। এই অ্যান্টি অক্সিডেন্টগুলো চুলের ক্ষতি রোধ করে এবং মাথার স্ক্যাল্প সুস্থ রাখে।

চুলের চাকচিক্যভাব ফিরিয়ে আনে: চুলে শ্যাম্পু করার পর দুই কাপ কুসুম গরম পানিতে দুই টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে চুলে ম্যাসাজ করুন। এটি রোদে পোড়া চুলের অনুজ্জ্বলতা দূর করে চাকচিক্যভাব ফিরিয়ে দেবে।

ব্যাকটেরিয়ারোধী এবং জীবাণুমুক্ত গুণাবলী: মধু অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল (ব্যাকটেরিয়ারোধী) গুণসম্পন্ন। এটি মাথার স্ক্যাল্পে ইনফেকশন প্রতিরোধে কাজ করে এবং চর্মরোগ, খুশকি ও সোরিয়াসিস সমস্যার মোকাবেলা করে।

চুলের গ্রন্থিকোষ পরিষ্কার করে: মধু চুলের গ্রন্থিকোষ শক্তিশালী করার পাশাপাশি গ্রন্থিকোষ থেকে সকল প্রকার অবিশুদ্ধতা পরিষ্কার করে দেয়। এটা কেন খুবই বড় একটি উপকারিতা? কারণ হচ্ছে, গ্রন্থিকোষের অবিশুদ্ধতায় চুল পড়তে শুরু করে।

চুল পুনরায় গজানোর উদ্দীপক হিসেবে কাজ করে: চুলের বৃদ্ধি জোরদার করতে কাজ করে মধু এবং সুপ্ত গ্রন্থিকোষ বৃদ্ধির জন্যও কার্যকরী। তাই আপনার চুলের ঘনত্ব যদি পাতলা হয়ে থাকে, তাহলে ঘন চুল পেতে মধু ব্যবহার করতে পারেন।

মধুর কয়েকটি হেয়ার প্যাক

* মধুর সঙ্গে নারকেলের তেল মিশিয়ে চুলের গোড়ায় ম্যাসাজ করুন। ২০ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন মাইল্ড শ্যাম্পু ব্যবহার করে। সপ্তাহে দুইবার ব্যবহার করতে পারেন প্যাকটি।

* ২ ভাগ মধু ও ৫ ভাগ আপেল সিডার ভিনেগার একসঙ্গে মিশিয়ে চুলের গোড়ায় লাগান। আধা ঘণ্টা পর ভেষজ শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুইবার ব্যবহার করতে পারেন এই প্যাক।

* পাকা কলা চটকে অলিভ অয়েল ও মধু মিশিয়ে চুলের আগা থেকে গোড়া পর্যন্ত লাগান। ৩০ মিনিট পর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

* মধু ও অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে চুলে লাগিয়ে রাখুন। ১ ঘণ্টা পর ধুয়ে ফেলুন শ্যাম্পু ব্যবহার করে।

তথ্যসূত্র: রিডার্স ডাইজেস্ট

টেক টাইমস বিডি

টেক টাইমস বিডি ফেসবুক গ্রুপে যোগ দিয়ে প্রযুক্তি বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করতেঃ এখানে ক্লিক করুন
টেক টাইমস বিডি ফেসবুক পেইজ লাইক করে সাথে থাকুনঃ টেক টাইমস বিডি ফেসবুক পেজের লিংক
টেক টাইমস বিডি ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করতেঃ এখানে ক্লিক করুন এবং তথ্য প্রযুক্তির আপডেট ভিডিও দেখুন।
গুগল নিউজে টেক টাইমস বিডি সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন।
তথ্য প্রযুক্তির আপডেট খবর পেতে ভিজিট করুন www.techtimesbd.com ওয়েবসাইট।

আরও দেখুন
Back to top button
error: Content is protected !!