সর্বশেষঃ

বিকাশ অ্যাপের নতুন সেবাগুলো সম্পর্কে জেনেছেন তো?

বাংলাদেশের প্রতিটি প্রান্তে প্রতিটি পরিবারের সদস্য এখন বিকাশ। প্রতিদিনের ছোট-বড় অসংখ্য আর্থিক লেনদেন যেকোন সময় যেকোন স্থান থেকে মোবাইলের মাধ্যমে করার সুযোগ তৈরি করে সবার আস্থার প্রতীক হয়ে উঠেছে এই মোবাইল আর্থিক সেবা। বাসা থেকে বের হওয়ার আগে মানিব্যাগ, মোবাইল নেয়া হলো কিনা দেখে নেন অনেকে। বিকাশের কল্যাণে মানিব্যাগের প্রয়োজন কমতে শুরু করেছে। এখন মোবাইল সাথে থাকলেই প্রতিদিনের ছোটবড় আর্থিক লেনদেনগুলো সহজেই সেরে নেওয়া সম্ভব। দৈনন্দিন আর্থিক লেনদেন সহ প্রতিদিনের আরো নানান প্রয়োজন পূরণ করে একটি পূর্ণাঙ্গ লাইফস্টাইল অ্যাপে পরিণত হওয়ার লক্ষ্যে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন সেবা ও ফিচার যুক্ত হচ্ছে বিকাশ অ্যাপে। সাম্প্রতিক সময়ে বিকাশ অ্যাপে যুক্ত হয়েছে নতুন অনেক সেবা এবং ফিচার যা গ্রাহকের জীবনে আরো স্বাচ্ছন্দ্য এনেছে।

অ্যাপে নতুন কী যুক্ত হলো: বিকাশ অ্যাপ আপডেট হলে তাতে নতুন কী কী ফিচার যুক্ত হলো তা এখন গ্রাহক সহজেই বুঝতে পারছেন। একটি ডট চিহ্ন থাকছে নতুন ফিচারের পাশে। যেমন ধরা যাক অগ্রণী ব্যাংকে টাকা লেনদেন সেবা চালু হয়েছে একটি আপডেটে। গ্রাহক তার অ্যাড মানি অপশনের পাশে একটি ডট চিহ্ন দেখছেন। ফলে এখন নতুন সেবা বা ফিচার যুক্ত হওয়ার সাথে সাথেই সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারছেন গ্রাহক।

ডিসকভার বিকাশ (বিকাশ নিয়ে জানুন): কেবল ডটই নয় বিকাশ অ্যাপের মেনুতে যুক্ত হয়েছে ডিসকভার বিকাশ অপশন। এখানে ক্লিক করেও গ্রাহক বিকাশে নতুন কি ফিচার যুক্ত হয়েছে তা জানতে পারছেন সহজেই। এছাড়াও এখানে রয়েছে বেশ কিছু টিউটোরিয়াল ভিডিও, যে দেখে গ্রাহক বিভিন্ন বিকাশ সেবার ব্যবহার শিখে নিতে পারছেন।

তিতাস গ্যাসের বিল পরিশোধ: তিতাস গ্যাসের বিল এখন বিকাশের মাধ্যমে পরিশোধ করা যাচ্ছে। প্রতি মাসে নির্দিষ্ট অংকের বিল পরিশোধ করে তিতাসের সেবা ব্যবহার করেন যে গ্রাহকরা তারা এখন ঘরে বসেই বিকাশ দিয়ে তিতাসের বিল পরিশোধ করতে পারবেন। উৎসে আয়কর কর্তন হয় এমন মিটার ব্যবহারকারী গ্রাহকরা  ছাড়া বাদবাকি সব মিটার ব্যবহারকারী গ্রাহকরা তিতাসের গ্যাস বিল বিকাশে পরিশোধ করতে পারবেন।

অ্যান্ড্রয়েড ভেরিফিকেশন কোড কনসেন্ট: বিকাশ অ্যাপের নিরাপত্তা আরো সুচারু করতে যুক্ত হয়েছে অ্যান্ড্রয়েড ভেরিফিকেশন কোড কনসেন্ট। এই পদ্ধতির কারণে একজন গ্রাহক অ্যাপ ডাউনলোড করে বিকাশ নম্বর দেয়ার পর যে ভেরিফিকেশন কোড পাবেন তা ‘অ্যালাউ’ বাটন ক্লিক করে কনসেন্ট দিতে হবে। ফলে যে হ্যান্ডসেটে বিকাশ নম্বরটি ব্যবহার হচ্ছে সিমটি থাকতে হবে কেবল সেই হ্যান্ডসেটেই। ফলে প্রতারণার উদ্দেশে অন্য ডিভাইসে বিকাশ অ্যাপ এক্টিভেট করার সুযোগ বন্ধ হ’ল। আইওএস ব্যবহার করেন যে বিকাশ গ্রাহক তাদের জন্যও যুক্ত হয়েছে একটি নতুন ভেরিফিকেশন স্টেপ। সার্বিকভাবে বিকাশ অ্যাপের নিরাপত্তা আরো সুসংহত হ’ল।

আমার QR: প্রতিজন বিকাশ গ্রাহকের জন্য অনন্য ফিচার ‘আমার QR’। বিকাশ অ্যাপে যেখানে গ্রাহকের ছবি থাকে সেখানেই গ্রাহক পেয়ে যাচ্ছেন তার স্বতন্ত্র QR কোডটি। গ্রাহক তার QR কোডটি ডাউনলোড করে বা সরাসরি অ্যাপ থেকেই আরেকজন বিকাশ গ্রাহককে দেখাতে পারবেন, যিনি কোডটি স্ক্যান করে খুব সহজেই সেন্ড মানি সেবা ব্যবহার করতে পারবেন। যেহেতু QR কোড স্ক্যান করে তথ্য নিয়ে সেন্ড মানি করা হচ্ছে, ফলে এই পদ্ধতিতে ভুল নম্বরে টাকা যাওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই। গ্রাহকরা এই QR কোডের অনেক রকমের ব্যবহার করতে পারবেন। যেমন, বন্ধুরা মিলে হয়ত কোথাও বেড়াতে যাবেন বা কাউকে সাহায্য করবেন। একজনের বিকাশ অ্যাকাউন্টে টাকা সংগ্রহ হচ্ছে। সেক্ষেত্রে যে অ্যাকাউন্টে টাকা সংগ্রহ হচ্ছে তার QR কোডটি ফেসবুক বা অন্য সামাজিক যোগাযোগের গ্রুপে শেয়ার করে রাখলেন। যারা টাকা পাঠাবেন তারা খুব সহজেই এই QR কোডটি স্ক্যান করে টাকা পাঠিয়ে দিতে পারবেন।

পে বিল টিউটোরিয়াল: ছোট অংকের টাকা কিন্তু পরিশোধে বড় ঝামেলা হ’ল ইউটিলিটি সেবার বিল পরিশোধ। বিকাশ অ্যাপের কল্যাণে সেই ঝামেলা এখন নেই বললেই চলে। বিল পরিশোধ মানেই এখন বিকাশ। সারাদেশের সবগুলো বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানীসহ গ্যাস, পানি, সিটি কর্পোরেশন ও আরো অসংখ্য সেবার বিল যেকোন সময় যেকোন স্থান থেকে ঝামেলা ছাড়াই পরিশোধ করে নিরবচ্ছিন্ন সেবা ব্যবহার করতে পারেন গ্রাহক। গ্রামের একবারে সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে শহরের সুবিধাভোগি শ্রেণী সহ সব বয়সের গ্রাহক বিকাশ সেবা ব্যবহার করেন। সব গ্রাহকই যেন সহজে পে বিল সেবা ব্যবহার করতে পারেন সেই লক্ষ্যেই বিকাশ অ্যাপে যুক্ত করা হয়েছে পে বিল টিউটোরিয়াল। ধরা যাক একজন গ্রাহক পল্লী বিদ্যুতের বিল পরিশোধ করবেন। তার তথ্যগুলো দেয়ার পরে প্রয়োজনে ভিডিওটিতে বিল পরিশোধের পদ্ধতিটি দেখে নিতে পারবেন। এছাড়াও বিল কপি থেকে আসলে কোন নাম্বারটি অ্যাপে বসাতে হবে তাও সহজেই দেখে নেওয়া যাবে স্যাম্পল ছবি থেকে। ফলে কারো সাহায্য ছাড়াই যে কেউ বিল পরিশোধ সেবা উপভোগ করতে পারবেন। এই সেবার মাধ্যমে গ্রাহকের মাঝে ডিজিটাল সচেতনতা তৈরি করে ডিজিটাল অভ্যস্ততা বাড়ানোই বিকাশের লক্ষ্য।

বিল পরিশোধের পর তার রশিদ সংরক্ষণের সুযোগ রয়েছে। বিকাশ অ্যাপে যুক্ত হয়েছে পরিবেশবান্ধব ডিজিটাল পে বিল রিসিট বা রশিদ যা গ্রাহক খুব সহজেই সংরক্ষণ করতে পারবেন এবং প্রয়োজনের সময় খুব দ্রুত খুঁজে পাবেন ও ব্যবহার করতে পারবেন। এছাড়াও নিয়মিত বিলগুলোর একাউন্ট তথ্য সেভ করে রাখার সুযোগ তো আছেই।

খাবারের অর্ডার: প্রিয় রেস্টুরেন্ট থেকে খাবার আনাতে অনেকেই প্রযুক্তি সেবা ব্যবহার করেন। এখন আর বাড়তি কোন অ্যাপ ব্যবহার করতে হচ্ছে না। বার্গার কিং এবং পিজা হাট থেকে খাবারের অর্ডার দেয়া যাচ্ছে বিকাশ অ্যাপ থেকেই। বিকাশ অ্যাপের মেনু থেকে ‘আরো’ অপশন ক্লিক করে ফুড নির্বাচন করে সহজেই কয়েক মুহুর্তে অর্ডার নির্বাচন করে পেমেন্ট সম্পন্ন করতে পারছেন গ্রাহক। এই তালিকায় আরো রেস্টুরেন্ট যুক্ত হবে।

টিকেট: বাংলাদেশ রেলওয়ে ও বিডিটিকিস এর পাশাপাশি এখন বিকাশ অ্যাপে যুক্ত হয়েছে বাসবিডি, ফ্লাইট এক্সপার্ট ও গো জায়ান। গ্রাহকরা গো জায়ান এর মাধ্যমে বিমানের টিকেট কাটা ও বিভিন্ন হোটেলের রুম বুকিং করতে পারবেন বিকাশ অ্যাপ থেকেই। এছাড়াও কোথাও না গিয়ে খুব সহজে ঘরে বসেই যেকোনো সময় গ্রাহকরা বাস, ট্রেন ও লঞ্চ এর টিকিটও কাটতে পারবেন।

গেম: বিকাশ কেবল আর্থিক লেনদেন নয়, গ্রাহকের বিনোদনেরও সঙ্গী হয়ে উঠেছে। অ্যাপের ‘আরো’ অপশন থেকে গেমস নির্বাচন করে বার্ড গেম এবং Goama Games খেলার সুযোগ পাচ্ছেন গ্রাহক, যা তার অবসর সময়কে আনন্দময় করে তুলছে।

ইন্স্যুরেন্স: নানান রকম ঝুঁকি নিয়েই সকলের পথচলা। ইন্স্যুরেন্স ভবিষ্যতের আর্থিক নিরাপত্তায় বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় সেবা। বাড়তি সময় ব্যয় করে কোথাও না গিয়ে গ্রাহক এখন খুব সহজেই বিকাশ অ্যাপ থেকেই মিলভিক এবং কার্নিভাল অ্যাসিউর ইন্স্যুরেন্স-এর মত জেনারেল এবং হেলথ ইন্স্যুরেন্স এর সেবার কিস্তি বিকাশ অ্যাপেই দেওয়ার সুবিধা রয়েছে, ফলে গ্রাহকের জন্য এই সেবা নেয়া খুবই সহজ। দেশের যেকোন প্রান্ত থেকে যেকোন সময় একজন বিকাশ গ্রাহক নিজের এবং পরিবারের নিরাপত্তায় এই সেবা নিতে পারবেন। বিকাশ অ্যাপেই সেবার কিস্তির পরিমান এবং সুবিধা পাওয়ার হার সম্পর্কেও জানতে পারবেন।

মোবাইল রিচার্জ অফার: সারাদেশের মোট মোবাইল রিচার্জের ২৫ শতাংশই বিকাশ ব্যবহার করে হয়। এই বিশাল সংখ্যক গ্রাহকের সুবিধা বিবেচনায় তাদেরকে শ্রেষ্ঠ অফারটি দিতে নতুন ফিচার যুক্ত হয়েছে বিকাশ অ্যাপে। ধরা যাক একজন গ্রাহক বিকাশ অ্যাপ দিয়ে ৫০ টাকা মোবাইল রিচার্জ করবেন। টাকার পরিমান দেয়ার সাথে সাথেই তিনি “অফার দেখুন”বাটনটি দেখতে পাবেন। এখানে ক্লিক করলে ৫০ টাকার আশেপাশের টাকার অংকে কি কি অফার রয়েছে তা দেখতে পাবেন গ্রাহক এবং নিজের প্রয়োজন অনুসারে শ্রেষ্ঠ অফারটি নেয়ার সুযোগ পাবেন তিনি। কাঙ্খিত টাকায় সবচেয়ে ভালো অফারটি বেছে নেওয়ার সুযোগ দিতেই নতুন এই ফিচার যুক্ত হয়েছে।

রেফার-এ-ফ্রেন্ড: অসংখ্য সুবিধা সম্বলিত বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করে গ্রাহক তার প্রিয়জনকেও অ্যাপ ব্যবহারে উৎসাহিত করতে পারেন। বিকাশ অ্যাপে যুক্তে হয়েছে ‘‘রেফার-এ-ফ্রেন্ড” অপশনটি। অ্যাপের ডানদিকের বিকাশ লোগোতে ক্লিক করে রেফার এ ফ্রেন্ড অপশনটি পাবেন গ্রাহক।

এরপর ‘‘রেফার করুন’’ এ ক্লিক করে অ্যাপের লিংকটি যেকোন মাধ্যম যেমন এসএমএস, ই-মেইল, ম্যাসেঞ্জার, হোয়াটস্অ্যাপ, ভাইবার, ইমো, ইত্যাদিতে শেয়ার করতে পারবেন।

গ্রাহকের শেয়ার করা লিংক দিয়ে প্রিয়জন বিকাশ অ্যাপে লগইন করলেই গ্রাহক পেয়ে যাবেন ২০ টাকা বোনাস এবং ঐ ব্যবহারকারী অ্যাপে যেকোন একটি ট্রানজেকশন করলেই লিংক শেয়ারকারী পাবেন আরো ৮০ টাকা বোনাস।

যিনি প্রথমবার অ্যাপ ব্যবহার করছেন তার জন্য প্রথম লগইন এ থাকছে ২৫ টাকা বোনাস আর প্রথবার ২৫ টাকা মোবাইল রিচার্জ এ পাবেন ৫০ টাকা ক্যাশব্যাক। এই অফারটি ৩১ ডিসেম্বর ২০২০ পযন্ত চলবে।

তথ্যসূত্র : বিকাশ

বিজয়ের মাসে বিকাশে ১১ টাকা মোবাইল রিচার্জে ১৬ টাকা ক্যাশব্যাক

ভিভো মাসে একদিন বিনামূল্যে সার্ভিস দেবে

One thought on “বিকাশ অ্যাপের নতুন সেবাগুলো সম্পর্কে জেনেছেন তো?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!