লাইফস্টাইল

সন্তানের পরীক্ষার চাপ সামলাতে সাহায্য করবেন যেভাবে

পরীক্ষার আগে সন্তানদের পেছনে দুধের গ্লাস নিয়ে ছোটা, তাদেরকে পুষ্টিকর খাবার খাওয়ানোর চেষ্টা প্রায় সব বাবা-মা করে থাকেন। এ সময় ছেলে-মেয়েরা রাত জেগে পড়ে প্রস্তুতি নেয়। পরীক্ষা নিয়ে সন্তানদের এই যে তীব্র মানসিক চাপ, তা দূর করতে বাবা-মাকে কিছু পদক্ষেপ নেয়া উচিৎ। এ সময়টায় বাবা-মাও খুব মানসিক চাপে থাকেন। তাই পরীক্ষার সময় সন্তানের পরীক্ষার চাপ সামলাতে সাহায্য করবেন যেভাবে।

মাথা ঠান্ডা রাখুন : সন্তানের পরীক্ষার আগে তাকে মানসিক চাপ মুক্ত করতে হলে বাবা-মাকেই আগে মাথা ঠান্ডা রাখতে হবে। যদি আপনি নিজেই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন, তাহলে আপনার সন্তান আরো মানসিক চাপে পড়তে পারে। তাই সব সময় মাথা ঠান্ডা রাখুন। পরিবেশে আতঙ্ক ছড়াবেন না। যদি হাসিখুশি পরিবেশে সন্তানকে পড়ার সুযোগ করে দেন, তাহলে সে ভারমুক্ত হয়েই পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে পারবে।

অন্য কারো সঙ্গে তুলনা করবেন না : বাবা-মায়েরা যে বড় একটা ভুল প্রায় সময় করেন, তা হলো- অন্য ছাত্র বা আত্মীয়ের সঙ্গে নিজের সন্তানকে তুলনা করেন। সে তার মতো হতে পারছে না, সেটা বলেন। এটা তার সন্তানের আত্মবিশ্বাস নষ্ট করে দিতে পারে। নিজের খুব চৌকস বড় সন্তানের সঙ্গে ছোট সন্তানদের তুলনা করলেও একই রকম ভাবে মানসিকভাবে ভেঙে পড়তে পারে আপনার ছোট সন্তান।

মনোযোগ বিক্ষিপ্ত কেন তা স্পষ্ট করুন : বড় হতে যাওয়া সন্তানরা এখন বেশিরভাগ সময়ই বিক্ষিপ্ত মানসিকতায় থাকে। পরীক্ষার আগে তাদের সেই বিক্ষিপ্ত মনোভাবের কারণ স্পষ্ট করুন। যেমন- স্মার্টফোনে বা সোশ্যাল মিডিয়ায় আসক্তির মতো কারণ থাকলে সন্তানকে তা থেকে দূরে থাকার পরামর্শ দিন।

সন্তানের পাশে থাকুন, তবে সারাক্ষণ নয় : বাবা-মা হিসেবে আপনি সন্তানের পাশে থাকলে, তারা নির্ভার বোধ করবে। পরীক্ষা চলাকালে প্রতিদিন তাদের খবরাখবর নেয়া জরুরি। তবে তাই বলে সারাক্ষণ তাদের আশেপাশে ঘুর ঘুর করলে সন্তানরাও এক পর্যায়ে বিরক্ত হয়ে উঠতে পারে। তাই তাদের নিজের মতো করে পড়ার সুযোগ দিন।

সন্তানদের একটি রুটিন করে দিন : পরীক্ষার আগে স্বাভাবিক কারণেই পড়ার চাপ থাকে বেশি। তাই সন্তানের পরীক্ষার কয়েক মাস আগে থেকেই নির্দিষ্ট সময়ে পড়া-খাওয়া ও ঘুমানোর রুটিনটা বাবা-মা হিসেবে আপনাকেই করে দেয়া উচিৎ। অনেক ছেলে-মেয়ে পরীক্ষার আগে গভীর রাত পর্যন্ত পড়ে। পারলে তাকে এই অভ্যাসটা থেকে বিরত রাখুন। সে যেন পর্যাপ্ত ঘুমায় ও সকালে উঠে পুষ্টিকর নাস্তা করতে পারে, তা নিশ্চিত করুন।

পড়ার মাঝখানে বিরতি দেয়া শেখান: পরীক্ষার আগে পুরো দিন জুড়ে একটানা পড়া মস্তিষ্কে চাপ সৃষ্টি করতে পারে। তাই সন্তানকে শেখান সে যেন নির্দিষ্ট সময় বিরতি দিয়ে আবারো নতুন উদ্যমে পড়তে বসে। ওই বিরতির সময় সে জগিং করতে পারে, গান শুনতে পারে বা সাইক্লিং করতে পারে। এসময় তাকে মাল্টিমিডিয়া থেকে দূরে থেকে হালকা শারীরিক ব্যায়াম করার পরামর্শ দিন।

ইতিবাচক পরিবেশ তৈরি করুন : সবচেয়ে বড় কথা, মা-বাবাকে মনে রাখতে হবে সন্তানের পরীক্ষা মানে ‘পৃথিবী ধ্বংস হওয়া’র মতো কোনো ঘটনা না। তাই বাড়িতে একটা হাসি-খুশি, ইতিবাচক পরিবেশ বজায় রাখা খুব জরুরি। এতে করে আপনার ছেলে/মেয়ে ভারমুক্ত থেকে প্রস্তুতি নেবে ও আত্মবিশ্বাস নিয়েই পরীক্ষা দিতে পারবে।

তথ্যসূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া

এই বিভাগের আরও খবর

সম্পর্কিত খবর
Close
Back to top button
error: Content is protected !!